Prof. Dr. SMA Erfan Piles and Colorectal Surgeon in BD

Fill each field.

Close Appointment form

সাধারন প্রশ্নসমূহ

প্রশ্ন ও উত্তরসমূহ যা সকলের জানার দরকার

কথাটা সঠিক নয়। যথাযথ ভাবে এবং উপযুক্ত সার্জন যেমন একজন কোলোরেকটাল সার্জন অপারেশন করলে পাইলস আবার হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। সবচাইতে বড় কথা অধিকাংশ ক্ষেত্রে পাইলস এর ক্ষেত্রে অপারেশন এর প্রয়োজন হয় না। ব্যান্ড লাইগেশন ইত্যাদি প্রকৃয়ায় চিকিৎসা করা যায় অধিকাংশ পাইলস এর। শুধুমাত্র খুব জটিল অর্থাৎ থার্ড ও ফোর্থ ডিগ্রী (3° ও 4°) পাইলস এর অপারেশন প্রয়োজন হয়।

না, পাইলস ছাড়াও ফিসার, রেকটাল পলিপ, প্রোকটাইটিস ইত্যাদি কারণে মলের সাথে রক্ত যেতে পারে। সবচাইতে বড় কথা রেকটাল ও এনাল ক্যান্সারেও মলের সাথে রক্ত যেতে পারে। একজন বিশেষজ্ঞই পরীক্ষা করে বলতে পারবেন কি রোগের জন্য রক্ত যাচ্ছে। এক্ষেত্রে হাতুড়ে চিকিৎসকের কথার কর্ণপাত করে জীবন বিপন্ন করা উচিৎ নয়। বাংলাদেশে হাজার হাজার রোগী আছে যারা পাইলস এর রোগীহিসাবে দীর্ঘদিন চিকিৎসার পর দেখা যায় মূল রোগ ছিল পায়ুপথের ক্যান্সার। এসব ক্ষেত্রে তখন প্রায়ই আর তেমন কিছু করার থাকে না। তাই মলের সাথে রক্ত গেলে অবশ্যই একজন উপযুক্ত বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হওয়া প্রয়োজন।

অবশ্যই। যথাযথ রোগ নির্নয় ও ষ্টেজিং এর মাধ্যমে সঠিক ভাবে অপারেশন করতে পারলে অধিকাংশ অস্ত্র ও পায়ুপথ ক্যান্সারের রোগী সম্পূর্ণ ভাল হয়ে যায়। তবে এক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তিনটি বিষয় হচ্ছে (১) প্রাথমিক পর্যায়ে রোগ নির্নয় (২) রোগের যথাযথ ষ্টেজিং অর্থাৎ রোগ কতটুকু ছড়িয়েছে এটি পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে বের করা এবং (৩) যথাযথ অপারেশন হওয়া। সঠিক অপারেশন হওয়ার ফলে আমার অনেক রোগী বর্তমানে ১০/১৫ বছর সম্পূর্ণ সুস্থভাবে বেচেঁ আছেন। তাই প্রাথমিক পর্যায়ে রোগ নির্নয় সহ উপরোক্ত তিনটি বিষয় অত্যন্ত জরুরী।

তাদের চিকিৎসায় যদি পাইলস বা অন্য কোন রোগ ভাল হতো তা হলে আমরা বিশ্বব্যাপী সেই চিকিৎসা প্রচলন করতে পারতাম। আর পাইলস চিকিৎসা করেই বাংলাদেশ ধনী দেশ হয়ে যেত। ‘পাইলস চিকিৎসক’ যা করে তা হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের Corrosive agent অর্থাৎ এসিড জাতীয় পদার্থ দিয়ে উক্ত এলাকা ‘পুড়িয়ে’ দেয়। ফলে রক্ত নালীগুলো বন্ধ হয়ে রক্ত পড়া অর্থাৎ পাইলস এর যে সমস্যা তা বন্ধ হয়, তাতেই তারা বলে পাইলস ভাল হয়েছে। কিন্তু এতে করে আরও অনেক বড় ক্ষতি হয়। এসিড জাতীয় দ্রব্যের কারণে পায়ুপথের গঠন সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে যায়। ফলশ্রুতিতে পরবর্তীকালে পায়ুপথ কখনই স্বাভাবিক হয় না। ক্রনিক আলসার এবং Irritation (প্রদাহ) এর ফলে ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে। সুতরাং এসব ব্যাপারে সবসময় অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে।

Developed By : Md. Al amin